Health Benefits Of Jackfruit

কাঁঠাল এর ২০টি উপকারিতা জানলে অবাক হবেন | Health Benefits Of Jack fruit

কাঁঠাল এর ২০টি উপকারিতা

আজকে আমরা  কথা বলবো বাংলাদেশের জাতীয় ফল কাঁঠাল নিয়ে কাঁঠালের বিচিত্র উপকারিতা নিয়ে।আজকে আমরা আলোচনা করবো জাতীয় ফল কাঁঠাল এর ২০পি উপকারিতা নিয়ে। বাংলাদেশের কাঠাল জাতীয় ফল বলে আমাদের জানা আছে এর ইংরেজি নাম হচ্ছে Jackfruit বাংলাদেশের সব স্থানেই কমবেশি কাঠাল পাওয়া যায়।

বসন্ত  প্রথম দিকে এটি কাঁচা অবস্থায় এবং গ্রীষ্ম বর্ষায় পাকা অবস্থায় পাওয়া যায় । এটি আকারে বেশ বড় হয়ে থাকে এর পুষ্টিগুণ রয়েছে অনেক কাঁঠালের ৪/৫ গোয়া থেকে ১০০ কিলোক্যালরি খাদ্যশক্তি পাওয়া যায় । এর হলুদ রঙের কোষ হচ্ছে ভিটামিন এ সমৃদ্ধ দুই থেকে তিন কোষ কাঁঠাল আমাদের এক দিনের ভিটামিন এর চাহিদা পূরণকরে সেজন্য কাঁঠাল অপুষ্টিজনিত সমস্যা রাতকানা এবং রাতকানা থেকে অন্ধত্ব প্রতিরোধ করার জন্য খুবই উপযোগী ফল ।

আরো পড়ুনঃ চুলের যত্নে আমলকী ! কিভাবে বানাবেন আমলকীর তেল

 
Benefits Of Jackfruit

Health Benefits Of Jackfruit

শিশু কিশোর কিশোরী এবং কোন বয়সে নারী-পুরুষ সব শ্রেণীর জন্যখুবই উপকারী কাঠাল ফল গর্ভবতী এবংযে মা বুকের দুধখাওয়ান তাদের জন্য কাঁঠাল খুবেই দরকারি ফল । শরীরেভিটামিন এ এর অভাবদেখা দিলে ত্বক খসখসে হয়ে যায় শরীরের লাবণ্য তা হারিয়ে ফেলেএজন্য কাঁঠাল প্রতিরোধ করতে পারে এছাড়া কাঁঠালের মধ্যে ভিটামিন সি এবং কিছুটা  ভিটামিনবি আছে ।

পাকা কাঁঠাল যেমন উপকার রয়েছে তেমনি কাঁচা কাঁঠাল ও কম উপকারীনয় কাঁচা কাঁঠাল আমিষ ও ভিটামিনসমৃদ্ধ তরকারি। কাঁচা কাঁঠালের বিচি বাদামের মত ভেজে খাওয়াযায় তেমনি তরকারি হিসেবেও খাওয়া যায় । ১০০গ্রাম কাঁঠালেরবিচিতে ৬.৬ গ্রামআমিষ আছে ও ২৫.৮গ্রাম শর্করা আছে । সবার জন্যইআমিষ সমৃদ্ধ কাঁঠালের বিচির উপকারিতা আছে। আমাদের সকলের উচিত বেশি বেশি করে কাঠল গাছ লাগানো  ।সেইসঙ্গেকাটারএরভিটামিনএএরঘাটতিপূরণকরাসম্ভব।

 

আজকে আমরা জেনে নিবো কাঁঠালের ২০টি উপকারিতাঃ

১ কাঁঠালের চর্বিরপরিমাণ নিতান্ত কম এই ফলখাওয়ার কারণে ওজন বৃদ্ধির আশংকা কম ।

২ কাঁঠাল পটাশিয়ামেরউৎস ১০০ গ্রাম কাঁঠালে পটাশিয়ামের পরিমাণ ৩০৩ মিলিগ্রাম যারা পটাশিয়াম উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে এজন্যে কাটালে উচ্চরক্ত চাপের উপশম হয় ।

৩ কাঁঠালে প্রচুরপরিমাণ ভিটামিন এ আছে যারাত কানা রোগ প্রতিরোধ করে ।

৪ কাঁঠালের অন্যতমউপযোগিতা হলো ভিটামিন সি প্রকৃতিক ভাবেমানবদেহে ভিটামিন সি উৎপাদন হয়না রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি ও দাতের মাড়িশক্তিশালী করে ভিটামিন সি ।

৫ কাঁঠালে বিদ্যমানফাইটোনিউট্রিয়েন্ট ক্যান্সার,আলসার, উচ্চ রক্তচাপ এবং বার্ধক্য প্রতিরোধে সক্ষম ।

৬ কাঁঠালে আছেশক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা আমাদের দেহকেক্ষতিকর ফ্রি রেডিক্যাল থেকে রক্ষা করে এছাড়াও আমাদেরকে সর্দি কাশি রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে ।

৭ টেনশন এবংনরমাল প্রেসার কমাতে কাঁঠাল বেশ কার্যকরী ।

৮ বদ হজমকমাতে কাঁঠাল বেশ উপকারিতা আছে ।

৯ কাঁঠাল গাছেরশেখর হাঁপানি উপশম করে শেখর সিদ্ধ করলে যে উৎকৃষ্ট পুষ্টিউপাদান নিষ্কাশিত হয় তা হাঁপানির প্রকোপনিয়ন্ত্রণে সক্ষম ।

১০ চর্ম রোগেরসমস্যা সমাধানেও কাঁঠালের শেকড় কার্যকরী জ্বর এবং ডায়রিয়া নিরাময় করে কাঁঠালের শেকড় ।

১১ কাঁঠালে আছেবিপুল পরিমাণে খনিজ উপাদান ম্যাঙ্গানিজ রক্তের শর্করা বা চিনির পরিমাণনিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে

১২ কাঁঠালে বিদ্যমানম্যাগনেসিয়াম ক্যালসিয়াম এর মত হাড়েরগঠন ও হাড় শক্তিশালীকরণে ভূমিকা পালন করে ।

১৩ কাঁঠালে আছেভিটামিন b6 যা হৃদরোগের ঝুঁকিকমায় ।

১৪ কাঁঠালে বিদ্যমানক্যালসিয়াম কেবল হাড়ের জন্য উপকারী নয় রক্ত সংকোচন প্রক্রিয়া ও সমাধানে ওভূমিকা রাখে ।

১৫ ৬ মাসবয়সের পর থেকে মায়েরদুধের পাশাপাশি শিশুকে  কাঁঠালেররস খাওয়ালে শিশুর ক্ষুধা নিবারণ হয় অন্যদিকে তার প্রয়োজনীয় ভিটামিনের অভাব পূরণ হয় ।

১৬ চিকিৎসা শাস্ত্রমতে প্রতিদিন ২০০ গ্রাম তাজা পাকা কাঁঠাল খেলে গর্ভবতী মহিলা ও তার গর্ভধারন কৃত শিশুর সব ধরনের পুষ্টিরঅভাব দূর হয় ।

১৭ গর্ভবতী মহিলারাকাঁঠাল খেলে স্বাস্থ্য স্বাভাবিক থাকে এবং গর্ভস্থ সন্তানের স্বাস্থ্য স্বাভাবিক হয় ।

১৮ দুগ্ধদানকারী মাতাজা পাকা কাঁঠাল খেলে দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি পায় ।

১৯ কোষ্ঠকাঠিন্য দূরকরে ।

২০ কাঁঠালে রয়েছেখনিজ উপাদান আয়রন যা দেহের রক্তাল্পতাদূর করে ।

এরকম স্বাস্থ্য সম্পর্কিত নতুন নতুন তথ্য জানতে আমাদের সাথে থাকুন এবং এই পোস্টটি আপনারফেসবুকে শেয়ার করে রাখতে পারেন ।

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.