ল্যাকটোজেন ১

ল্যাকটোজেন ১ খাওয়ানোর নিয়ম । Lactogen 1 Feeding Table

ল্যাকটোজেন ১ খাওয়ানোর নিয়মঃ ল্যাকটোজেন ১ হলো খুবে জনপ্রিয় একটি ইনফ্যান্ট ফর্মুলা যে সকল শিশুরা জন্মের পরে থেকে সঠিক ভাবে মায়ের বুকের দুধ থেকে বঞ্চিত সেই সকল বাবুদের জন্য ল্যাকটোজেন ১ হলো মিক্ল বেইজড ইনফ্যান্ট ফর্মুলা। বাজারে আপনি শিশুর বয়স অনুসারে দেখতে পাবেন ল্যাকটোজেন ১, ২, ৩ । তবে মায়ের দুধের বিকল্প কোন কিছু নেই জন্ম পর থেকে ০৬ মাস বয়স পর্যন্ত ল্যাকটোজেন ১ আপনি আপনার শিশুকে খাওয়াতে পারেন । এতে আছে প্রয়োজনিও পুষ্টি উপাদানসমূহঃ এনার্জি, প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেট, ফ্যাট, ফাইবার, ভিটামিন, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, সোডিয়াম, ক্লোরাইড, পটাশিয়াম, আয়োডিন, জিংক এবং আরো ভিটামিন, মিনারেল, অন্যান্য। বিঃদ্রঃ তবে ল্যাকটোজেন খাবার আগে রেজিস্টর্ড চিকিৎসকরে সাথে পরামর্শ করে নিন। আজকে আমরা এই পোস্টে আপনাদের সাথে আলোচনা করবো ল্যাকটোজেন ১ খাওয়ানোর নিয়ম।

 

ল্যাকটোজেন 1 এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

 

ল্যাকটোজেন ১ আপনার শিশুর জন্য ততখন নিরাপদ যতখন আপনি সঠিক নিয়মে খাওয়াবেন। ল্যাকটোজেন ১ এর তেমন কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললে চলে। যেহেতু এটি হলো মাতৃদুদ্ধের বিকল্প তাই সতর্কতার সাথে প্রতিবার দুদ্ধ তৈরির সময় নিজেকে পরিস্কার করে নিতে হবে। নিয়ম বহির্ভূত কোন কাজ করলে আপনার শিশু অসুস্থ অথবা স্বাস্থ্যহানি হতে পারে। প্রতিবার ফর্মুলা তৈরির আগে প্রস্তত প্রণালি টি ও খাওয়ানোর নিয়ম টি ভালো ভাবে দেখে নিন।

 

ল্যাকটোজেন ১ দাম ২০২২

 

নেসলে ল্যাকটোজেন ১ এর ফর্মুলাটি হলো সুইজারল্যান্ড এর । বাংলাদেশে একমাত্র উৎপাদনকারী ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান হলো নেসলে বাংলাদেশে লিমিটেড। পণ্যটি ক্রয় করার পূর্বে উৎপাদন তারিখ ও মেয়াদ ভালো করে দেখে নিন। ল্যাকটোজেন ১ এর বর্তমান দাম হলো ১৮০ গ্রাম ল্যাকটোজেন ১ সর্বোচ্চ খুচরা বিক্রয় মূল্য ২৬০ টাকা। কোন স্থানে মূল্য থেকে ১০ টাকা কম নিয়ে থাকে।

 

ল্যাকটোজেন ১ খাওয়ানোর সঠিক নিয়ম । Lactogen 1 Feeding Table

 

ল্যাকটোজেন ১ ফর্মুলাটি খুবে সহজ একটি কাজ। সঠিক ভাবে প্রস্তত করলে আপনার শিশু থাকবে সুস্থ । নিচে আপনাদের শিশুর বয়স অনুসারে ফর্মুলাটি প্রস্তত এবং সংরক্ষণ প্রণালি প্রদান করা হলো।

 

শিশুর বয়স আগে ফুটানো পানি(মি.লি.) কত চামচ দিতে হবে দৈনিক কতবার খাওয়াবেন
১ম ও ২য় সপ্তাহ ৯০ মি.লি.
৩য় ও ৪র্থ সপ্তাহ ১২০ মি.লি.
২য় মাস ১৫০ মি.লি.
৩য় ও ৪র্থ মাস ১৮০ মি.লি.
৫ম ও ৬ষ্ট মাস ২১০ মি.লি.
  • প্রথমে শিশুর দুধ তৈরির আগে আপনার হাত ভালোভাবে ধুয়ে নিন।
  • খাবার তৈরির পাত্র সামগ্রী সস্পূর্ণ রুপে পরিস্কার করে নিন।
  • দুধ খাওয়ার ফিটার গরম পানি দিয়ে পরিস্কার করে নিন।
  • খাওয়ার পানি ৫ মিনিট ধরে ফুটিয়ে নিন এবং ঠান্ডা করে নিন।
  • পরিমাণ মত পানি ঢেলে নিন।
  • কেবল মাত্র সংযুক্ত চামচটি দিয়ে ফর্মুলাটি নিন।
  • শিশুর বয়স অনুসারে সঠিক পরিমাণে পাউডার নিন।
  • পাত্রের মুখ লাগান এবং ভালোভাবে ঝাঁকিয়ে পাউডার সস্পূর্ণরুপে মিশিয়ে নিন।
Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.