দোকান ভাড়ার চুক্তিপত্র তৈরি করার সঠিক নিয়োম ও নমুনা doc ফাইল

ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান করার জন্য আমরা দোকান ঘর ভাড়া নিয়ে থাকি । আর একটি দোকান ভাড়ার নিতে হলে আমাদের একটি চুক্তি পত্র করতে হয় । যাতে করে কোন প্রকার সমস্যা না হয় ভবিষ্যতে। আজকে আমি শেয়ার করবো আপনাদের মাঝে কি ভাবে দোকান ভাড়ার চুক্তিপত্র লিখতে হয়। দোকান ভাড়ার চুক্তিপত্র doc এর মাধ্যমে আপনি নিজের নাম ঠিকানা ইত্যাদি তর্থ্য দিয়ে আপনার দোকান ভাড়ার চুক্তিপত্র টি লিখতে পারবেন । দোকান ভাড়ার চুক্তিপত্র নমুনা pdf ফইলটি দেখতে পারেন। এতে করে কিভাবে চুক্তিপত্র টি লিখতে হবে তার সুন্দর একটা আইডিয়া পাবেন ।

 

 

১মপক্ষ (মালিক) মোঃ ………………………………,পিতা ……………………..,সাকিন-……………….,

ডাকঘর-………………., থানা-……………….,জেলা-…………….,জাতি-………………., জাতীয়তা-………………….।

 

২য়পক্ষ (ভাড়াটিয়া) মোঃ …………………, পিতা-…………….., পেশা-……………….,সাকিন-…………………, ডাকঘর- ……………………., থানা-……………, জেলা-………….., জাতি-……………, জাতীয়তা-……………..।

 

 

কষ্য দোকান ঘর ভাড়ার চুক্তিপত্র দলিল লেখার উদ্দেশ্যে বর্ণিত হইতেছে যে, ১ম পক্ষের নিজ নামে বরাদ্দকৃত ……………………..কাঁচাবাজারের…………….নং দোকান ঘরটি ২য় পক্ষ মোঃ…………………., পিতা-…………………, পেশা- ………., সাকিন-………………., ডাকঘর- ……………, থানা-……………, জেলা- …………, জাতি- …………., জাতীয়তা- বাংলাদেশী ব্যবসার উদ্দেশ্যে ভাড়া লইবার ইচ্ছা প্রকাশ করিলে উভয় পক্ষের সম্মতিক্রমে নিম্ন লিখিত শর্ত সাপেক্ষে চুক্তি সম্পাদন করা হইল ।

 

শর্তাবলীঃ

 

১. দোকান ঘরের জামানত ….,০০০/- (…….. হাজার) টাকা ২য় পক্ষ ১ম পক্ষকে প্রদান করিলেন । যাহা মেয়াদান্তে সমন্বয় পূর্বক ফেরৎযোগ্য ।

 

২. উক্ত দোকান ঘরের ভাড়ার চুক্তির মেয়াদ ……. (……) বছর । অর্থাৎ …/…./২০১৯ ইং হইতে …/…/২০… ইং তারিখ পর্যন্ত বলবৎ থাকিবে ।

 

৩. দোকান ঘরের মাসিক ভাড়া ………/- (……….) টাকা নির্ধারন করা হইল । প্রতি মাসের ভাড়া পরবতী মাসের ৫ (পাঁচ) তারিখের মধ্যে পরিশোধ করিতে হইবে ।

 

৪. অত্র দোকান ঘরে ব্যবহিত বিদ্যুৎ বিল, ব্যবসায়িক কর ও ট্রেড লাইসেন্স ২য় পক্ষ এবং জমির খাজনা ১ম পক্ষ বহন করিবেন ।

 

৫. ২য় পক্ষ কোন অবস্থাতেই অন্য কাহারো নিকট ভাড়াটিয়া দোকান ঘর ভাড়া বা হস্তান্তর করিতে পারিবেন না এবং ২য় পক্ষের দ্বারা মূল দোকান ঘরের কোন ক্ষতি সাধন হইলে তাহার ক্ষতিপূরণ ২য় পক্ষ দিতে বাধ্য থাকিবে ।

৬. ভাড়াটিয়া দোকান ঘরের যাবতীয় সৌন্দর্য্য বর্ধনের কাজ ২য় পক্ষ তার নিজ দায়িত্বে বহন করিবে ।

 

৭. মেয়াদ মধ্যে কোন পক্ষ অত্র চুক্তিপত্র বাতিল করিতে চাহিলে অপরপক্ষকে কমপক্ষে ৩ (তিন) মাস পূর্বে লিখিত ভাবে জানাইতে হইবে ।

 

৮. ২য় পক্ষ ভাড়াটিয়া দোকান ঘরে কোন অবস্থাতেই কোন প্রকার অবৈধ মালামাল সংরক্ষন অথবা ব্যবসা করিতে পারিবেন না । এরূপ করিলে ২য় পক্ষ দায়ী ও দন্ডনীয় হইবেন এবং অত্র ভাড়াটিয়া চুক্তিপত্র বাতিল বলিয়া গণ্য হইবে ।

 

৯. মেয়াদান্তে ২য় পক্ষ পূনরায় উক্ত দোকান ঘর ভাড়া নিতে চাহিলে উভয় পক্ষের আলোচনা সাপেক্ষে তাহা নবায়নযোগ্য ।

 

                   আমারা উভয় পক্ষ উপরের উল্লেখিত শর্তাবলী নিজে পড়িয়া ও ইহার মর্ম উপলব্ধি পূর্বক স্বেচ্ছায়, স্বঙ্গানে ও অন্যেও বিনা প্ররোচনায় স্বাক্ষীগণের সম্বুখে নিজ নিজ নাম সহি করিয়া চুক্তিপত্র সম্পাদন করিলাম ।

 

১ম পক্ষের (মালিক) স্বাক্ষর                                      ২য় পক্ষের (ভাড়াটিয়া) স্বাক্ষর

(০১)……………………                                                            (০১)……………………

 

সাক্ষীগণের স্বাক্ষর 

(০১)……………………

(০২)……………………

(০৩)……………………

দোকান ভাড়ার চুক্তিপত্র doc
 
Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.